×
×
×

শবে কদরের আমলসমূহ

ইমাম সাদেক (আ.) বলেছেন, যে ব্যক্তি শবেক্বদরকে রাতভর জেগে থেকে রুকু-সেজদার মধ্য দিয়ে কাটিয়েছে এবং নিজের পাপ-কালিমার স্তুপকে মূর্তমান করে তুলে অনুশোচনায় কান্নাকাটি করে কাটিয়েছে, ঐ ব্যক্তিকে সাবাস দেই, সাধুবাদ জানাই।

শবে কদরের তিন রাতের সাধারণ আমল

১- আল্লামা মজলিসি (রহ) শবে কদরের আমল সম্পর্কে বলেছেন-সর্বপ্রথম যে আমলটি এই রাতের সূচনায় করা উচিত তা হলো-গোসল করা। তিনি গোসল করে মাগরিবের নামায আদায় করার কথা বলেছেন।

২- মাগরিবের নামাযের পর দুই রাকাত নামায পড়া। প্রতি রাকাতে সূরা আল-হামদের পর সাতবার করে সূরা তৌহিদ। সূরা তৌহিদ হলো কুল হু য়াল্লাহু আহাদ...এই সূরাটি। এভাবে দুই রাকাত নামায পড়ার পর ৭০ বার আস্তাগফিরুল্লাহা রাব্বি মিং কুল্লি জাম্বিউঁ ওয়া-আতুবু ইলাইহি....পড়া। এভাবে যিনি নামায পড়বেন এবং ইস্তিগফার করবেন তিনি ঐ স্থান ত্যাগ করার আগেই আল্লাহ রাব্বুল আলামিন তাঁর এবং তাঁর পিতা-মাতার ওপর রহমত বর্ষণ করবেন।

৩- কোরআন তেলাওয়াৎ করা এবং দোয়া পড়া। মাফাতিহুল জানান নামক দোয়ার সংকলনে বুযুর্গানে দ্বীন এবং আইয়্যামে মুজতাহেদীনের আমলকৃত সাহিত্য গুণসমৃদ্ধ বহু দোয়া সংকলিত আছে যেমন: দোয়া জৌশান কাবিরদোয়া আবু হামজা সুমালিদোয়া সাহর ...ইত্যাদি।

৪- নামাযের পর কোরআন খুলে বলতে হবে:

اللَّهُمَّ إِنِّي أَسْأَلُكَ بِكِتَابِكَ الْمُنْزَلِ وَ مَا فِيهِ وَ فِيهِ اسْمُكَ الْأَكْبَرُ وَ أَسْمَاؤُكَ الْحُسْنَى وَ مَا يُخَافُ وَ يُرْجَى أَنْ تَجْعَلَنِي مِنْ عُتَقَائِكَ مِنَ النَّارِ.

অর্থ: হে আল্লাহ! তোমার কাছে আবেদন করছি: তোমার নাযিলকৃত গ্রন্থের দোহাই দিয়েযা তার মধ্যে রয়েছে তার দোহাই দিয়েতার মধ্যে রয়েছে তোমার শ্রেষ্টতম নামউত্তম নামসমূহযেসবের মাধ্যমে মানুষ ভীত ও আশান্বিত হয়। যাতে আমাকে তুমি জাহান্নামের আগুনের দাহ থেকে নাজাত দান কর। তারপর কোরআনের যেকোন স্থান থেকে পাঠ করা যেতে পারে।

- কোরআন মাথায় নিয়ে দোয়া করা:

اللَّهُمَّ بِحَقِّ هَذَا الْقُرْآنِ وَ بِحَقِّ مَنْ أَرْسَلْتَهُ بِهِ وَ بِحَقِّ كُلِّ مُؤْمِنٍ مَدَحْتَهُ فِيهِ وَ بِحَقِّكَ عَلَيْهِمْ فَلا أَحَدَ أَعْرَفُ بِحَقِّكَ مِنْكَ

অর্থ: হে আল্লাহ তোমার কাছে দোয়া করছি এই কোরআনের উসিলায়তার উসিলায় যার প্রতি তুমি তা নাযিল করেছতার মধ্যে যেসব মুমিনের প্রসংসা করছো তাদের উসিলায়তাদের উপর তোমার যে হক্ব রয়েছে তার উসিলায়। তবে তোমার চেয়ে বেশি কেউ তোমার অধিকার সম্পর্কে জানেনা।

তারপর দশ বার:

بِكَ يَا اللَّهُ....، দশ বার بِمُحَمَّدٍ ...،দশ বার بِعَلِيٍّ : দশ বার... بِفَاطِمَةَ ....، দশ বার بِالْحَسَنِ ..، দশ বার بِالْحُسَيْنِ .....،দশ বারبِعَلِيِّ بْنِ الْحُسَيْنِ ... : দশ বারبِمُحَمَّدِ بْنِ عَلِيٍّ .....،দশ বারبِجَعْفَرِ بْنِ مُحَمَّدٍ ......، দশ বার بِمُوسَى بْنِ جَعْفَرٍ ....، দশ বার بِعَلِيِّ بْنِ مُوسَى .....، দশ বারبِمُحَمَّدِ بْنِ عَلِيٍّ .....،দশ বারبِعَلِيِّ بْنِ مُحَمَّدٍ ....، দশ বারبِالْحَسَنِ بْنِ عَلِيٍّ....، দশ বার بِالْحُجَّةِ

অতঃপর যা ইচ্ছা দোয়া করা যাবে।

- দুই রাকাত নামাযের পর দাড়িয়ে ইমাম হোসাই (আ.)এর যিয়ারত পাঠ করা।

- আল্লামা মাজলেসি বলেছেন, শবে কদরে জাগা ভীষণ সাওয়াব। রাত জাগলে আল্লাহ বান্দার সকল গুনাহ মাফ করে দেবেন। তার গুনাহের পরিমাণ যদিও পর্বত পরিমাণ কিংবা আকাশের তারার মতো অগণিতও হয়। তবে রাতজাগা মানে দৈহিক জাগৃতি নয় বরং অন্তরকে জাগ্রত রাখা। আর অন্তরকে জাগ্রত রাখার উপায় হলো আইম্যাদের (ইমামগণের) বর্ণনা এবং কোরআন তেলাওয়াৎ করা। এই আমলগুলো খুব একটা কষ্টসাধ্য নয়। আল্লাহ যাদেরকে শারীরিক সুস্থতা দিয়েছেন তাদের উচিত শবে কদরকে যথাযথভাবে কাজে লাগানো।

- একশত রাকাত নামায যার ফজিলত অনেক। যাদের কাজা নামায রয়েছেতারা একশত রাকাত কাজা নামায পড়তে পাড়েন।

-  নিম্নলিখিত দোয়া পাঠ করা:

اللَّهُمَّ إِنِّي أَمْسَيْتُ لَكَ عَبْدا دَاخِرا لا أَمْلِكُ لِنَفْسِي نَفْعا وَ لا ضَرّا وَ لا أَصْرِفُ عَنْهَ

سُوءا أَشْهَدُ بِذَلِكَ عَلَى نَفْسِي وَ أَعْتَرِفُ لَكَ بِضَعْفِ قُوَّتِي وَ قِلَّةِ حِيلَتِي فَصَلِّ عَلَى

مُحَمَّدٍ وَ آلِ مُحَمَّدٍ وَ أَنْجِزْ لِي مَا وَعَدْتَنِي وَ جَمِيعَ الْمُؤْمِنِينَ وَ الْمُؤْمِنَاتِ مِنَ الْمَغْفِرَةِ

فِي هَذِهِ اللَّيْلَةِ وَ أَتْمِمْ عَلَيَّ مَا آتَيْتَنِي فَإِنِّي عَبْدُكَ الْمِسْكِينُ الْمُسْتَكِينُ الضَّعِيفُ

الْفَقِيرُ الْمَهِينُ اللَّهُمَّ لا تَجْعَلْنِي نَاسِيا لِذِكْرِكَ فِيمَا أَوْلَيْتَنِي وَ لا [غَافِلا] لِإِحْسَانِكَ

فِيمَا أَعْطَيْتَنِي وَ لا آيِسا مِنْ إِجَابَتِكَ وَ إِنْ أَبْطَأَتْ عَنِّي فِي سَرَّاءَ [كُنْتُ‏] أَوْ ضَرَّاءَ أَوْ

شِدَّةٍ أَوْ رَخَاءٍ أَوْ عَافِيَةٍ أَوْ بَلاءٍ أَوْ بُؤْسٍ أَوْ نَعْمَاءَ إِنَّكَ سَمِيعُ الدُّعَاءِ

শবে কদরের ১৯শের রাতের বিশেষ আমল

১- একশত বার: "اَستَغفُرِاللهَ رَبی وَ اَتوبُ اِلَیه".

২- একশত বার: اَللّهُمَّ العَن قَتَلَةَ اَمیرَالمومنینَ".

৩- এই দোয়া পড়া: "یا ذَالَّذی کانَ..."

৪- এই দোয়া পড়া: اَللّهَمَّ اجعَل فیما تَقضی وَ..."

আল্লাহ আমাদের সবাইকে শবে কদরে বেশি বেশি ইবাদাত করার মধ্য দিয়ে আল্লাহর সন্তুষ্টি অর্জন করার তৌফিক দিন। আসলে ইবাদাতের সারবস্তু হলো আল্লাহর সন্তুষ্টি অর্জন। আল্লাহ যদি কোনো বান্দার ওপর সন্তুষ্ট থাকেন, তাহলে তার জীবনের সকল গুনাহখাতা মাফ হয়ে যাবে এটাই স্বাভাবিক।

ইমাম সাদেক (আ.) বলেছেন, যে ব্যক্তি শবেক্বদরকে রাতভর জেগে থেকে রুকু-সেজদার মধ্য দিয়ে কাটিয়েছে এবং নিজের পাপ-কালিমার স্তুপকে মূর্তমান করে তুলে অনুশোচনায় কান্নাকাটি করে কাটিয়েছে, ঐ ব্যক্তিকে সাবাস দেই, সাধুবাদ জানাই। 

যারা এভাবে শবেক্বদরকে উদযাপন করেছে আশা করি তারা নিরাশ হবে না এবং নিজস্ব লক্ষ্যে পৌঁছুতে সক্ষম হবে। ইমামের এই আশাবাদ যেন আমাদের সবার জীবনে বাস্তব হয়ে ওঠে সেই দোওয়া হোক পরস্পরের জন্যে।

लाइक कीजिए
0
फॉलो अस
नवीनतम
আমেরিকার প্রতি হুঁশিয়ারি

উত্তর কোরিয়ার ভয়ে কেঁপে উঠল ওয়াশিংটন

ইরান নিয়ে আমেরিকাকে ইইউএর পরাম ...

ইরান নিয়ে আমেরিকাকে ইউরোপীয় ইউনিয়নএর পরামর্শ

আলী (আঃ)এর শাহাদাতবার্ষিকী

হযরত ইমাম আলী (আঃ)এর শাহাদাতবার্ষিকী

যিয়ারত-এ আশুরা

অর্থসহ যিয়ারত-এ আশুরা

হাড্ডাহাড্ডি লড়াই

পশ্চিমবঙ্গে এগিয়ে তৃণমূল

শবে কদরের আমল

শবে কদরের আমলসমূহ

আমেরিকাকে চীনের সতর্ক

আমেরিকাকে আবারও সতর্ক করেছে চীন

মার্কিন বিমান ঘাঁটিতে হামলা

ইরাকে মার্কিন বিমান ঘাঁটিতে ড্রোন হামলা

ইসরাইলি ড্রোন ভূপাতিত

গাজায় ইসরাইলি ড্রোন ভূপাতিত

আমেরিকাকে তুরস্কের হুঁশিয়ারি ...

এবার আমেরিকাকে তুরস্কের হুঁশিয়ারি

রুশ কূটনীতিকদের বহিষ্কারের জবা ...

৩টি পশ্চিমা দেশকে রাশিয়ার চাপট আঘাত

পুতিনকে সাক্ষাতের প্রস্তাব

রাশিয়ার কাছে নত হলেন বাইডেন