×
×
×

ইমাম হাসান আসকারী (আঃ) এর কিছু অমিয় বাণী

৮ রবীউল আওওয়াল মহানবী সা-এর পবিত্র আহলুল বাইতের (আঃ ) একাদশ মাসূম ইমাম হাসান আল আসকারী আঃ এর শাহাদাৎ দিবস । ২৬০ হিজরীর এ দিনে পঞ্চদশ আব্বাসীয় খলিফা মু’তামিদের শাসনামলে মাত্র ২৮ বছর বয়সে আব্বাসীয় প্রশাসনের ষড়যন্ত্রে বিষক্রিয়ায় আক্রান্ত হয়ে শাহাদাৎ বরণ করেন ।

৮ রবীউল আওওয়াল মহানবী সা-এর পবিত্র আহলুল বাইতের (আঃ ) একাদশ মাসূম ইমাম হাসান আল আসকারী আঃ এর শাহাদাৎ দিবস ।২৬০ হিজরীর এ দিনে পঞ্চদশ আব্বাসীয় খলিফা মুতামিদের শাসনামলে মাত্র ২৮ বছর বয়সে আব্বাসীয় প্রশাসনের ষড়যন্ত্রে বিষক্রিয়ায় আক্রান্ত হয়ে শাহাদাৎ বরণ করেন । তিনি মহানবীর ( সা:) আহলুল বাইতের বারো ইমামের সর্বশেষ ইমাম অর্থাৎ  দ্বাদশ ইমাম মুহাম্মাদ আল মাহদীর (আঃ) পিতা যিনি বর্তমানে অন্তর্ধানে ( গায়বতে) আছেন এবং মহান আল্লাহর ইচ্ছায় আখেরি জামানায় কিয়ামতের আগে আত্মপ্রকাশ করে সমগ্র বিশ্বজগৎকে ন্যায়পরায়ণতা ও সুবিচার দিয়ে পরিপূর্ণ করবেন এবং সমগ্র বিশ্বে ইসলামকে বিজয়ী ও সুপ্রতিষ্ঠিত করবেন ।

এখন আমরা নিচে ইমাম হাসান আল আসকারী আঃ এর কিছু অমিয় বাণী পেশ করছি:

১ . ইমাম হাসান আল আসকারী আঃ বলেছেন:

আমাদের ( আহলুল বাইত আঃ) অনুসারী যে সব আলেম আমাদেরকে যারা ভালবাসে ও মহব্বত করে তাদের মধ্যে যারা দুর্বল তাদেরকে রক্ষা ও আমাদের বেলায়তের অনুসারীদের হিদায়েত ও তাদের সার্বিক বিষয় তদারক ও পরিচালনার দায়িত্ব পালন করেন( কাওওয়ামূন) কিয়ামত দিবসে তারা হাশরের ময়দানে এমনভাবে প্রবেশ করবেন ও উপস্থিত হবেন যে তাঁদের প্রত্যেকের মাথায় থাকবে সম্মান ও মর্যাদার মুকুট (তাজ) যার আলো ও দ্যুতি কিয়ামত দিবসে হাশরের ময়দানের সর্বত্র ছড়িয়ে পড়বে এবং তিন লক্ষ বছর দূরত্বের গমনপথে অবস্থিত সকল গৃহ ও ঘরবাড়ীকেও আলোকিত করবে।

قالَ الإمامُ الْحَسَنِ الْعَسْکَری – علیه السلام –: یَأتی عُلَماءُ شیعَتِنَاالْقَوّامُونَ لِضُعَفاءِ مُحِبّینا وَ أهْلِ وِلایَتِنا یَوْمَ الْقِیامَهِ، وَالاْنْوارُ تَسْطَعُ مِنْ تیجانِهِمْ عَلی رَأسِ کُلِّ واحِد مِنْهُمْ تاجُ بَهاء، قَدِ انْبَثَّتْ تِلْکَ الاْنْوارُ فی عَرَصاتِ الْقِیامَهِ وَ دُورِها مَسیرَهَ ثَلاثِمِائَهِ ألْفِ سَنَه.

(দ্র: তাফসীর আল ইমাম হাসান আল আসকারী আঃ পৃ: ৩৪৫পৃ: ২২৬)

ইমাম হাসান আল আসকারী আঃ তাঁর এ বাণীতে দায়িত্ব ও কর্তব্য পালন কারী আলেমদের পারলৌকিক মর্যাদা ও সম্মানের ব্যাপারে আলোকপাত করেছেন ।)

২. ইমাম হাসান আল আসকারী আঃ বলেছেন:

সবচেয়ে খোদাভীরু  ও পাক পবিত্র মানুষ হচ্ছে সেই ব্যক্তি যে সকল সন্দেহ জনক বিষয়ের ব্যাপারে সতর্ক হয় এবং সেগুলোয় লিপ্ত হওয়া থেকেবিরত থাকে ( অর্থাৎ   সন্দেহজনক বিষয়াদি থেকে দূরে থাকে ) ,  সবচেয়ে ইবাদৎকারী বান্দা হচ্ছে সেই ব্যক্তি যে শরিয়তের সকল ফরয ও ওয়াজিব কাজ সম্পাদন করে সবচেয়ে তাপস ও দুনিয়াত্যাগী হচ্ছে সেই ব্যক্তি যে হারাম  ( নিষিদ্ধ কাজ ও জিনিস) বর্জন করে এবং সবচেয়ে কঠোর কৃচ্ছতা সাধন কারী ব্যক্তি হচ্ছে সেই ব্যক্তি যে পাপ সমূহত্যাগ করে ।

أَوْرَعُ النَّاسِ مَنْ وَقَفَ عِنْدَ الشُّبْهَةِ ،أَعْبَدُ النَّاسِ من أقام علی الفرائض ، أزهد الناس من ترک الحرام ، أشد الناس اجتهاداً من ترک الذنوب .

৩. ইমাম হাসান আল আসকারী আঃ বলেছেন:

এক মু্মিন অপর মুমিনের জন্য বরকত এবং কাফিরের বিরুদ্ধে দলীল প্রমাণ (হুজ্জাৎ) স্বরূপ ।

المؤمن برکة علی المؤمن و حجة علی الکافر .‌

৪. ইমাম হাসান আল আসকারী আঃ বলেছেন:

চিত্ত যখন প্রফুল্ল থাকবে এবং তার মধ্যে উদ্দীপনা লক্ষ্য করা যাবে ঠিক তখনই

জ্ঞান শিক্ষা ও পূর্ণতা  অর্জন এবং ইবাদত বন্দেগীর জন্য ) তাকেনিয়োজিত ও মশগুল করবে। আর যখন চিত্ত প্রফুল্ল থাকে না ( মন মানসিকতা  ভালো  থাকে না অর্থাৎ চিত্ত যখন ক্লান্ত শ্রান্ত ও অবসন্ন থাকে ) তখন তাকে ( তার অবস্থার উপর) ছেড়ে দাও ( এবং এ অবস্থায় তাকে কোনো কিছুতে নিয়োজিত ও মশগুল করো না ।) ।

إذا نشطت القلوب فأودعوها ، و ،إذا نفرت فودِّعُوها .

৫. ইমাম হাসান আল আসকারী ( আঃ ) বলেছেন:

বিনা কারণে হাসি অজ্ঞতা ও মূর্খতারই লক্ষণ (অন্তর্ভুক্ত )।

من الجهل : الضحک من غیر عجب .

৬. ইমাম হাসান আল আসকারী আঃ বলেছেন :

তোমরা ঝগড়া-বিবাদ ও বাক-বিতণ্ডা করো না কারণ তা করলে তোমাদের মান-মর্যাদাই নষ্ট হয়ে যাবে এবং ঠাট্টা-মস্করা করো না কারণ তা করলে তোমাদের উপর অন্যেরা স্পর্ধা প্রদর্শন করবে ।

لا تمار فیذهب بهاؤک و لا تمازح فیجتری علیک .

৭. ইমাম হাসান আল আসকারী আঃ বলেছেন:

যে কেউ পাশ দিয়ে গেলেই তাকে সালাম দেওয়া এবং সভাস্থলের মর্যাদা পূর্ণ আসন ও স্থানের চেয়ে অপেক্ষাকৃত নিচু স্থান ও আসনে বসা হচ্ছে বিনয় ও নম্রতার অন্তর্গত ।

من التواضع : السلام علی کل من تمرّ به و الجلوس دون شرف المجلس .

৮. ইমাম হাসান আল আসকারী (আঃ)বলেছেন :

বোকার বিবেক – বুদ্ধি থাকে তার মুখের কর্তৃত্বে এবং প্রজ্ঞাবান ( বুদ্ধিমান) ব্যক্তির মুখ থাকে তার বিবেক – বুদ্ধির কর্তৃত্বে ।

قلب الأحمق في فمه ، و فم الحکیم في قلبه .

৯. ইমাম হাসান আল আসকারী আঃ বলেছেন:

মহান আল্লাহ পাক কর্তৃক জামানত কৃত  রিজিক ( জীবিকা) যেন তোমাকে ফরয আমল ( কর্ম) আদায় করা থেকে বিরত না রাখে।  ( অর্থাৎ আল্লাহ পাক বান্দার জন্য যে জীবিকা ও রুজিরোজগারের নিশ্চয়তা (জামানত) দিয়েছেন বান্দা তা প্রাপ্ত হবেই এবংতা অর্জন ও লাভ করতে গিয়ে ফরয আমল যেন তরক (বর্জন ) করা না হয় । তাই জীবিকা ও রুজিরোজগারের জন্য মাত্রাতিরিক্ত চেষ্টা ও পরিশ্রম  করতে গিয়ে নামায ও এর মত বহু শরয়ী ফরয যেন তরক (ত্যাগ ) করা না হয় ।)

لا یشغلک رزق مضمون عن عمل مفروض .

১০. ইমাম হাসান আল আসকারী (আঃ) বলেছেন :

শোকগ্রস্ত ও দু:খ ভারাক্রান্ত ব্যক্তির সামনে আনন্দ প্রকাশ ও স্ফূর্তি করা আসলেই শিষ্টাচার বিরোধী ও আদব কায়দা বহির্ভূত ।

لیس من الأدب إظهار الفرح عند المحزون .

১১.ইমাম হাসান আল আসকারী (আঃ) বলেছেন :

মুর্খ ব্যক্তিকে প্রশিক্ষিত করে গোড়ে তোলা এবং কোনো কুঅভ্যাসে অভ্যস্ত ব্যক্তিকে তার ঐ বদ অভ্যাস থেকে ফেরানো হচ্ছে মুজেযাসম  বা অলৌকিক কাজ সদৃশ  

ریاضة الجاهل و رد المعتاد عن عادته کالمعجز .

১২. ইমাম হাসান আল আসকারী (আঃ )বলেছেন:

বিনয় হচ্ছে এমন এক নেয়ামত যা

নিয়ে মানুষ হিংসা করে না ।

التواصع نعمة لا یحسد علیه

১৩. ইমাম হাসান আল আসকারী ( আঃ) বলেছেন:

যে ব্যক্তি গোপনে নিজ দ্বীনী ভাইকে উপদেশ দেয় সে আসলে তাকে সম্মানিত ও সুশোভিতই করল  ; আর যে ব্যক্তি তাকে প্রকাশ্যে ( সবার সামনে) উপদেশ দিল আসলে সে তাকে অপদস্থ ও কলঙ্কিতই করল ।

من وعظ أخاه سرّاً فقد زنانه ومن وعظ علانیةً فقد شانه.

১৪. ইমাম হাসান আল আসকারী ( আঃ) বলেছেন:

দুনিয়াদার ব্যক্তিরা ( দুনিয়া পূজারীরা) যদি বিবেকের অনুসরণ করত ও বিবেকবান হত তাহলে দুনিয়াপূজা বিলুপ্ত হয়ে যেত ।

او عقل اهل الدنیا خربت .

১৫. ইমাম হাসান আল আসকারী (আঃ)বলেছেন: দানশীলতা ও দানের একটা  সীমা ও মাত্রা আছে যা  ছাড়িয়ে গেলে উক্ত দান  অপব্যয়ে ( ইসরাফ) পরিণত হবে।

আর দূরদর্শিতা ও সতর্কতারও একটা মাত্রা ও সীমা আছে  যা ছাড়িয়ে  গেলে উক্ত দূরদর্শিতা ও সতর্কতা ভীরুতা ও কাপুরুষতা বলে গণ্য হবে ।

إن للجود مقدارا فإن زاد علیه فهو سرف و للحزم مقدارا فإن زاد علیه فهو تهوّر .

১৬. ইমাম হাসান আল আসকারী ( আঃ )বলেছেন:

মিতব্যয়িতার ( পরিমিত ও পর্যাপ্ত ব্যয় না বেশি না কম ) একটা মা্ত্রা ও সীমা আছে তাই মিত ব্যয়িতার এই মাত্রা বাড়ালে তা হবে কৃপণতা ( কার্পণ্য) আর সাহসেরও একটা মাত্রা ও সীমা আছে যা ছাড়িয়ে গেলে ঐ সাহস স্পর্ধা ও

দু:সাহসে পর্যবসিত হবে ।

إنّ للاقتصاد مقداراً ، فإن زاد علیه فهو بخل ؛ و للشجاعة مقداراً ، فإن زاد علیه فهو تهوّراً .

১৭. ইমাম হাসান আল আসকারী (আঃ) বলেছেন:

মুখমণ্ডলের সৌন্দর্য (মুখশ্রী) হচ্ছে বাহ্যিক ( জাহেরী) সৌন্দর্য এবং অন্তর ও বিবেক বুদ্ধির (আকল) সৌন্দর্য হচ্ছে অভ্যন্তরীণ ( প্রকৃত) সৌন্দর্য ।

حسن الصورة جمال ظاهر و حسن العقل جمال باطن .

১৮. ইমাম হাসান আল আসকারী (আঃ ) বলেছেন:

যার ঘুম (নিদ্রা) অধিক  ( যে অধিক ঘুমায় ) তার দু:স্বপ্নও অধিক ( সে অনেক দু:স্বপ্ন দেখে থাকে অতিরিক্ত ঘুমানোর কারণে ) ।

من أکثر المنام رآی الأحلام .

১৯. ইমাম হাসান আল আসকারী (আঃ )বলেছেন:

সকল কদর্যতা ( নোংরামি দুষ্কর্ম পাপ ) ও অমঙ্গলকে যদি একটি ঘরে  তালাবদ্ধ করে রাখা হয় তাহলে মিথ্যাবাদিতাহবে এর চাবিকাঠি ( অর্থাৎ মিথ্যা বলার মাধ্যমে এ সব কদর্যতা ও অমঙ্গল একে একে বের হয়ে আসবে ) ।

جُعلت الخبائث في بیت ، و الکذب مفاتیحها .

২০.ইমাম হাসান আল আসকারী (আঃ )বলেছেন :

ধর্মভীরুতা ও পাপাচার থেকে বিরত থাকা ( الورع)  হবে যার চারিত্রিক বৈশিষ্ট্য ও গুণ বদান্যতা ও মহানুভবতা হবে যার স্বরূপ ও প্রকৃতি ধৈর্য ও সহিষ্ণুতা হবে যার স্বভাব ( নিত্য বৈশিষ্ট্য ) তার প্রশংসাকারীদের সংখ্যা হবে অগণিত আর সে হবে বহুল প্রশংসিত এবং প্রশংসিত হওয়ার মাধ্যমে সে নিজ শত্রুদের উপরও সাহায্যপ্রাপ্ত ও বিজয়ী হবে ।

من کان الورع سجیته ، و الکرم طبیعته ، و الحلم خانه ، کثر صدیقه و الثناء علیه ، و انتصر من أعدائه بحسن الثناء علیه .

২১. ইমাম হাসান আল আসকারী (আঃ )বলেছেন :

মহান আল্লাহ পাকের সাথে মিলন ও তাঁর সান্নিধ্যে পৌঁছান হচ্ছে এমন এক আধ্যাত্মিক সফর ও পরিক্রমা যা রাতের উপর আরোহনও সওয়ার হওয়া ( রাত জেগে ইবাদত বন্দেগী করা ) ব্যতীত সম্ভব নয় ।

إن الوصول إلی الله عز و جل سفر لا یدرک إلا بامتطاء اللیل .

২২. ইমাম হাসান আল আসকারী (আঃ) বলেছেন :

যে ব্যক্তি মহান আল্লাহর  ঘনিষ্ঠবন্ধু ( আনিস ) হবে  সে যে কোনো মানুষের সামনে নিজেকে একা ও নি:সঙ্গ অনুভব করবে এবং ভয় পাবে (এজন্য যে  মহান আল্লাহ তায়ালার সাথে তার ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক ও বন্ধুত্ব যেন নষ্ট না হয়ে যায় )।

من كان آنس بالله استوحش من الناس .

২৩. ইমাম হাসান আল আসকারী (আঃ )বলেছেন :

মুমিনের জন্য ঐ গুণের অধিকারী হওয়া কতই না নিকৃষ্ট অশোভন ও ন্যাক্কারজনক যা তাকে অপদস্থ করে।

ما أقبح بالمؤمن تكون له رغبة تُذلّه .

আল্লাহ পাক আমাদেরকে মহানবীর (সা:) আহলুল বাইতের অমিয় বাণী শিক্ষা ও আদর্শ অনুসরণের তৌফিক দিন। আমীন।

দ্র : হাদীস নং ২ – ২৩ শেখ আব্বাস কুমী প্রণীত নেগহী বে যেন্দেগীয়ে  চাহরদাহ মাসূম ( আঃ:) পৃ: ৪৯৫ – ৪৯৮)

মুহাম্মাদ মুনীর হুসাইন খান

लाइक कीजिए
0
फॉलो अस
नवीनतम
জার্মানিকে জারিফের হুমকি

এবার ইউরোপকে ইরানের হুমকি

আয়াতুল্লাহ জাফার আল হাদির মারা ...

ইরানের আয়াতুল্লাহ জাফার আল হাদির ইন্তেকাল

বিশ্বকে ইসরাইলের বিরুদ্ধে রুখে ...

জাতিসংঘে ইসরাইলের বিরুদ্ধে ইরানের চিঠি

হায়দরাবাদ ভাগ্যনগর হবে না কেন ...

এবার হায়দরাবাদের নাম পরিবর্তন করবে বিজেপি

বিজ্ঞানী হত্যার ঘটনায় ইসরাইলের ...

বিজ্ঞানী হত্যার ঘটনায় ইসরাইলের হাত আছে: ইরান

ইরানের সমর্থনে পাকিস্তান

এবার ইরানের সমর্থনে পাকিস্তান

ভারতে আবার ও ঘূর্ণিঝড়

ভারতে আবার ও ঘূর্ণিঝড়ের তান্ডব

পশ্চিমবঙ্গকে ‘গুজরাট’ বানানোর ...

পশ্চিমবঙ্গকে ‘গুজরাট’ বানাবে দিলিপ

সুদানে নৌ ঘাঁটি নির্মাণ করছে র ...

এবার সুদানে রাশিয়ার নৌ ঘাঁটি নির্মাণ

হেগের সৌদি দূতাবাসে গুলিবর্ষণ

হল্যান্ডে সৌদি দূতাবাসে গুলিবর্ষণ

মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ...

ট্রাম্পকে হারানর পিছনে ছিল ইরান, রাশিয়া না চীন?

ম্যাকরনের বিরুদ্ধে বিশ্বব্যাপী ...

ম্যাকরনের বিরুদ্ধে বিশ্বব্যাপী মুসলমানদের ক্ষোভ

কোন বিপদ ইরানের সীমান্তকে হুমক ...

আজারবাইজান-আর্মেনিয়া নিয়ে ইরানের বড় হুমকি

বাংলাদেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ...

বাংলাদেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছুটি আবারও বাড়ল

ফ্রান্সে মহানবীকে (সা.) অবমানন ...

মহানবী(সা)কে অবমাননা,বিক্ষোভে উত্তাল ঢাকা

ইমাম হাসান আসকারী (আঃ) এর বাণী

ইমাম হাসান আসকারী (আঃ) এর কিছু অমিয় বাণী

ইসলামী পরিবার

ইসলামী পরিবার

ইমাম রেজার (আ.)এর শাহাদাত

হযরত ইমাম রেজার (আ.)এর শাহাদাত

ইমাম রেজার (আ.)এর শাহাদাত-বার ...

হযরত ইমাম রেজার (আ.)এর শাহাদাত-বার্ষিকী ২০২০

ইমাম রেজার (আ.)এর রওজা মুবারাক

হযরত ইমাম রেজার (আ.)এর রওজা মুবারাক